শাল্লায় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার ঘটনায় প্রকৃত দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে- পীর সাহেব চরমোনাই

প্রকাশিত: ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২১ | আপডেট: ১২:৩৩:পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২১

টি এম মিরাজীঃ- ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই সুনামগঞ্জের শাল্লায় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছেন, বাংলাদেশের আমরা প্রায়শই এমন ঘটনা দেখি এবং সত্য হলো অধিকাংশ ঘটনার সাথে ধর্মের নয় বরং ব্যক্তি ও রাজনৈতিক স্বার্থ জড়িত থাকে। কিন্তু সর্বদাই ইসলাম ও ইসলামপন্থিদের দোষারোপ করে বাংলাদেশকে কলঙ্কিত করা হয়। তিনি বলেন, শাল্লায় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার ঘটনা তদন্তে নাগরিক তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রকৃত দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

আজ শনিবার এক বিবৃতিতে পীর সাহেব চরমোনাই দৃঢ়তার সাথে বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে ইসলামের ছায়াতলেই সবচেয়ে সুন্দর ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় ছিলো। ইসলামপন্থিরা সর্বদা সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তায় কাজ করেছে। কিন্তু বাংলাদেশে বরাবরই এ ধরণের হামলার জন্য ইসলামপন্থিদের দায়ী করা হয়। আদতে বাস্তবতাভিন্ন।

পীর সাহেব বলেন, শাল্লার ঘটনায় প্রথমেই ইসলামপন্থিদেরকে দায়ী করা হয়। কিন্তু এখন ভিন্ন বাস্তবতা সামনে আসছে। সেজন্য এ ধরণের ঘটনার ক্ষেত্রে বিশেষত শাল্লার চলতি ঘটনায় উলামায়ে কেরাম সংখ্যালঘু প্রতিনিধিসহ নাগরিক কমিটি গঠন করে ঘটনার মূল হোতাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। তিনি বলেন, সরকার যদি নাগরিক তদন্ত কমিটি করতে গড়িমসি করে তাহলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সকল শ্রেণী পেশা-ধর্মের মানুষের সমন্বয়ে নাগরিক তদন্ত কমিটি করবে ইনশা আল্লাহ।