আল্লামা শাহ তৈয়্যবের ইন্তিকালে আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজীর শোক

প্রকাশিত: ১১:১০ পূর্বাহ্ণ, মে ২৬, ২০২০
শায়খুল ওলামা আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী। পীর সাহেব কারীমপুর, ঝালকাঠী
মহাসচিব, বা;লাদেশ কুরআন শিক্ষা বোর্ড। চেয়ারম্যান সদস্য, আল হাইয়াতুল উলইয়া। সহসভাপতি বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ। সভাপতি, জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ ।
তিনি আজ ২৬ মে সোমবার সংবাদ মাধ্যমে এক শোকবার্তায় আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী বলেন, আল্লামা শাহ মুহাম্মদ তৈয়্যব রহ.বাংলাদেশের একজন প্রথিতযশা শীর্ষ আলেম ও বুজুর্গ ব্যক্তি ছিলেন।তিনি আত্মশুদ্ধির সিলসিলায় শাহ আবরারুল হক (রহ.)এর খেলাফত প্রাপ্ত একজন উঁচুমানের হক্কানী পীর ছিলেন।চট্টগ্রামবাসীর জন্য তিনি ছিলেন রত্নতুল্য৷তার ইন্তেকালে বাংলার ইলমে আকাশের একটি উজ্জ্বল নক্ষত্র ঝরে পড়েছে ৷
চট্টগ্রাম বাসী হারিয়েছে একজন নিবেদিতপ্রাণ আলেমে দ্বীনকে ৷ তাঁর ইন্তেকালে ইলমী অঙ্গনে যে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে তা কভু পূরণ হবার নয়। ইতিহাস তার অমর কীর্তি চিরকাল স্মরণ রাখবে। আমি তার ইন্তেকালে গভীরভাবে শোকাহত।
রামাযানের শেষ দশ দিন মাদরাসা মসজিদে তিনি ইতিকাফে বসেন। ইতিকাফ শেষ করে আল্লাহ তায়ালার সান্নিধ্যে চলে যান। ঈদের দিন তাঁর জানাযা ও দাফন হবে। কত মুবারক ও মহিমান্বিত মৃত্যু!
আল্লাহ তায়ালা হযরতকে জান্নাতে উচ্চ মাকাম নসীব করুন।
তিনি আরোও বলেন আল্লামা তৈয়্যব রহ. আমার বড়ভাই সমতুল্য বন্ধুবর ছিলেন। তার সাথে আমার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। আমাকে অত্যন্ত মুহাব্বাত করতেন। আমি আমার একজন একান্ত প্রিয়ভাইকে হারিয়েছি।
দোয়া করি, যেন রাব্বে কারীম তাকে জান্নাতের সু-উচ্চ মাকাম দান করেন এবং তার পরিবার-পরিজন-ছাত্র-ছাত্রী,মুরীদান-শুভাকাঙ্খীদেরকে সবরে জামীল ধরার তৌফিক দান করেন।
Facebook Comments