জনাব মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল! ওয়াহাবি বিদ্বেষ চর্চা বন্ধ করুন;- মু.ছগির আহমদ চৌধুরী

প্রকাশিত: ১০:৩০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১২, ২০২১ | আপডেট: ১০:৩০:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১২, ২০২১

আলমগীর ইসলামাবাদী”চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ- বিশিষ্ট লেখক, গবেষক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক- মু. সগীর আহমেদ চৌধুরী।

দাওয়াহ ও প্রচার সম্পাদক, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগর। সভাপতি,ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা।

ডিগ্রি কি জিনিস, আমাদের পূর্বসূরিদের এক হাতে চাঁদ আরেক হাতে সূর্য এনে দেবে বলেও কেনা যায়নি।

ব্রিটিশ হানাদাররা যাদের পোষ মানাতে পারেনি এরা আবার কোন সিজ? ডিগ্রি নিয়ে যেভাবে খোটা দেওয়া শুরু করেছে, যেন জিনিসটা তার বাপের গোড়াউন থেকে এনে দিয়েছে।

এই ডিগ্রিতে আমাদের কোনোই মুনাফা নেই, নিজ গরজেই জেছে দিয়েছিল।

যে ডিগ্রির কোনো চাকরি নেই তা নিয়ে এতো বাহাদুরি কিসের? যে ডিগ্রির কর্ম নেই তা নিয়ে খোটা দেয় কোন ভিত্তিতে?

কিছু মন্ত্রী আছে যারা নিজেদেরকে দেশের রাজা মনে করে। তারাই একমাত্র নবাব, অন্যরা সব ফকিন্নির পোলা।

আমরা বিশৃঙ্খলা পছন্দ করি না, কিন্তু চট্টগ্রামের হাজার কোটি টাকার সম্পদ রেল স্টেশন পুরো জ্বালিয়ে পুড়িয়ে কারা ছাই করে দিয়েছিল আমাদের সেই ইতিহাস মনে আছে।

এটা প্রজাতন্ত্র, রাজত্ব-বাদশাহি নয় কারো।

কথিত সুন্নি মতাদর্শ লালন করতে মনে চাইলে করতে পারে যে কেউই। মাজারে মাজারে চাদর চড়াতে চাইলেও আপত্তি নেই। কিন্তু রাষ্ট্রের গুরত্বপূর্ণ পদে থেকে কথিত ওয়াহাবী বিদ্বেষ চর্চা করতে চাইলে মনে রাখতে হবে ওলামায়ে দেওবন্দ বানের পানিতে ভেসে আসেনি। হক্কানি ওলামায়ে কেরামের বিরুদ্ধে ফেরকাগত দাঙ্গা-ফাসাদ করে নিঃশ্বেষ করতে পারেনি কেউ।