একজন আইনুদ্দীন আল আজাদ রহঃ। সাইমুম সাদী

প্রকাশিত: ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ, জুন ২০, ২০২০

পল্টন থানার ওসির নিকট একটি দরখাস্ত জমা হলো। কলরব শিল্পী গোষ্ঠী নামক একটি সংগঠন কোনো একটা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান কর‍তে চায়।

কিন্ত উপরের নির্দেশ, কোনও সভা সমাবেশের অনুমতি দেওয়া যাবেনা। কলরবের লোকজনকে তিনি জানিয়ে দিলেন কথাটা।
কলরব শিল্পী গোষ্ঠীর কয়েকজন ওসি সাহেবের কক্ষে বসে চিন্তা করছিলেন কিভাবে প্রশাসনিক অনুমতি নেওয়া যায় তা নিয়ে। ঠিক এ সময়ই একটা ফোন এলো ওসি সাহেবের মোবাইলে।

মোবাইলে রিংটোন দেওয়া ছিলো একটা গান। গানটি বেজে ওঠল, ও মদীনার বুলবুলি/ তোমার নামের ফুল তুলি/ যতন করে হৃদয় মাঝে/ একা একা নিরিবিলি…

গানটা কলরবের গাওয়া এবং তা ওসি সাহেব একজন মোবাইল অপারেটর থেকে ডাউনলোড করেছেন। উপস্থিত কলরবের একজন বললো, স্যার যে গানটা রিংটোন হিসেবে রেখেছেন ওটা আমাদের গাওয়া।
এবার ভালো করে তাকালেন সামনে বসা লোকগুলোর দিকে। অবাক হয়ে বললেন, তাই নাকি! এটা তো আমার প্রিয় গান। যান, আপনাদেরকে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হলো। উপরের ব্যাপারটা আমি দেখব।
ঘটনাটি কয়েক বছর আগের।

বাসে উঠলে, ট্রেনে, লঞ্চে চায়ের দোকানে অফিসে ফোনের রিংটোনে কলরবের গান বাজে। হামদ নাত ও ইসলামী জীবনধারার চমৎকার উপস্থাপনা। গ্রামের কৃষকের কন্ঠ থেকে মিজানুর রহমান আজহারীর কন্ঠেও বেজে উঠে কলরবের ইসলামী সংগীত। একটা প্রজন্মকে দ্বীনের পথে আহ্বান করার জন্য কালচারাল মুভমেন্টের কিভাবে কাজ করে তার জীবন্ত উদাহরণ কলরব।
এই কাজটি শুরু করে দিয়ে গিয়েছিলেন খুবই সাদাসিধে একজন মানুষ।

পল্টনের ফুটপাতে দাড়িয়ে তিনি চা খেতেন। প্রায়ই গানের রেওয়াজ কর‍তে গিয়ে বাসায় যেতে পারতেননা, ক্যাফে নোয়খালী হোটেলে রাতের খাবার খেতেন। আমার সাথে দেখা হত ওখানেই, প্রায়ই। তার এই এখলাসপূর্ণ উদ্যোগ আল্লাহ কবুল করে নিয়েছিলেন।

এই মানুষটির নাম মরহুম আইনুদ্দীন আল আজাদ রাহিমাহুল্লাহ। আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফেরদৌসের সর্বোচ্চ মাকাম দান করুন।

Facebook Comments